মাওলানা শফীক উদ্দীনের ইন্তেকালে হেফাজত আমীর ও মহাসচিবের শোক- জনকল্যাণ২৪

প্রকাশিত: ১১:১৩ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ৩, ২০২১

মাওলানা শফীক উদ্দীনের ইন্তেকালে হেফাজত আমীর ও মহাসচিবের শোক- জনকল্যাণ২৪

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্মমহাসচিব ও খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমীর মাওলানা শফীক উদ্দীন-এর ইন্তেকালে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর, হাটহাজারী মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও শিক্ষাপরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ও হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব ও আন্তর্জাতিক মজলিসে তাহাফফুজে খতমে নবুওয়ত বাংলাদেশের আমির আল্লামা নুরুল ইসলাম জিহাদী।

 

আজ (৩ এপ্রিল) বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত পৃথক পৃথক বার্তায় এ শোক জানান হেফজত আমীর ও মহাসচিব।

 

শোকবার্তায় আমীরে হেফাজত বলেন, মাওলানা শফীক উদ্দীন দেশের একজন আলেম ও ব্যবসায়ী এবং রাজনীতিবিদ ছিলেন। এছাড়াও তিনি দ্বীনের বহুমুখী খেদমত আঞ্জাম দিয়েছেন। তাঁর ইন্তেকালে আমি গভীরভাবে শোকাহত।

 

আল্লামা বাবুনগরী বলেন, তিনি ছাত্র জীবন থেকে মৃত্যু অবধি ইসলামি আন্দোলনের একজন নিবেদিত প্রাণ সৈনিক ছিলেন। খেলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সারা বাংলাদেশে চষে বেড়িয়েছেন। ইসলামি আন্দোলনে তাঁর অপরিসীম ত্যাগ-তিতিক্ষা এবং কুরবানি অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। বাংলাদেশে ইসলাম প্রতিষ্ঠার আন্দোলনের অগ্রগতি, খেলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে উলামায়ে কেরাম ও দ্বীনদার বুদ্ধিজীবিদের সমন্বিত ধারা সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন মাওলানা শফীক উদ্দিন।

 

এদিকে শোকবার্তায় হেফাজত মহাসচিব আল্লামা নুরুল ইসলাম বলেন ,মাওলানা শফীক উদ্দীন ছিলেন দেশ ও জাতির কল্যাণে আত্মনিয়োগ কারি একজন বিচক্ষণ দেশ ও ইসলাম প্রেমিক রাজনীতিবিদ। পাশাপাশি তিনি একজন আলেম ও ব্যবসায়ী ছিলেন । এছাড়াও তিনি দ্বীনের বহুমুখী দায়িত্ব পালন করে গিয়েছেন। তাঁর ইন্তেকালে আমি গভীরভাবে শোকাহত।

 

আল্লামা নুরুল ইসলাম বলেন হেফাজতের যেকোনো প্রোগ্রামে তিনি সামনে থেকে নিবেদিত প্রাণ হয়ে দলকে নেতৃত্ব দিতেন। সকল কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করে তার উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথ পালন করার চেষ্টা করতেন।

 

আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ও আল্লামা নুরুল ইসলাম মরহুমের শোক সন্তপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলেন, মহান প্রভুর দরবারে দুআ করি, আল্লাহ তাআলা তাঁর সকল দ্বীনি খেদমতকে কবুল করেন।এবং তাকে জান্নাতের উঁচু মাকাম দান করেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ