চীনের উইঘুর মুসলিমদের উপর নির্যাতন: দূতাবাসের টুইটার অ্যাকাউন্ট বল্ক- জনকল্যাণ২৪

প্রকাশিত: ৯:৩২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১০, ২০২১

চীনের উইঘুর মুসলিমদের উপর নির্যাতন: দূতাবাসের টুইটার অ্যাকাউন্ট বল্ক- জনকল্যাণ২৪

জনকল্যাণ:- চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের নারীদের সঙ্গে অমানবিক আচরণের অভিযোগ এনে দেশটির দূতাবাসের অ্যাকাউন্ট ব্লক করেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার। ‘উইঘুর নারীদের সন্তান জন্মদানের মেশিন হিসেবে ব্যবহার করা যাবে না।’ সম্প্রতি এমন কথা বলেছে যুক্তরাষ্ট্র চীনা দূতাবাস।

 

এ ধরনের মন্তব্যকে অমানবিক আচরণ অভিহিত করে শনিবার (৯ জানুয়ারি) চীনা দূতাবাসের টুইট অ্যাকাউন্ট ব্লক করেছে টুইটার কর্তৃপক্ষ। খবর মিডলইস্টআই এর।

এমন সময় যুক্তরাষ্ট্রের চীনা দূতাবাস এমন বক্তব্য দিয়েছে যখন উইঘুর নারীদের জোরপূর্বক বন্ধ্যা করতে চীনা কর্তৃপক্ষের কর্মসূচির সম্পর্কে অভিযোগ তুলে টুইট করছে সহস্রাধিক মানুষ।

এদিকে, টুইটার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে,‘পর্যালোচনার পর দেখা গেছে চীনা কর্তৃপক্ষ ধর্ম-বর্ণ বা বর্ণের ভিত্তিতে এ ধরনের অমানবিক নিষেধাজ্ঞার ব্যবস্থা নিয়েছে যা আমাদের নীতিমালার বরখেলাপ।’

 

অবশ্য পরে টুইটে দেয়া বিবৃতি মুছে ফেলে চীনা দূতাবাস। ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছিল,‘চরমপন্থা নির্মূলের অংশ হিসাবে উইঘুর নারীদের লৈঙ্গিক সাম্যতা বজায় রাখতে ও তাদের প্রজনন স্বাস্থ্য উন্নতির জন্যে ঘন ঘন সন্তান জন্ম দেওয়া বন্ধ করতে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে, যা তাদের আরও আত্মবিশ্বাসী করে তুলবে।’

 

চীনা প্রশাসন সন্তান ধারণের অধিকার থেকে শুরু করে উইঘুর নাগরিকদের ব্যক্তিজীবনেও হস্তক্ষেপ করছে। ইচ্ছার বিরুদ্ধে গর্ভপাত করতে বাধ্য করা হচ্ছে দেশটির উইঘুর মুসলিম নারীদের। এমনকি বাধ্য করা হচ্ছে বন্ধ্যাত্বকরণেও।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ