ফ্রান্স সরকার ক্ষমা না চাইলে মুসলিমবিশ্ব আন্দোলনে উত্তাল হয়ে উঠবে: আল্লামা বাবুনগরী- জনকল্যাণ২৪

প্রকাশিত: ৮:৫০ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০২০

ফ্রান্স সরকার ক্ষমা না চাইলে মুসলিমবিশ্ব আন্দোলনে উত্তাল হয়ে উঠবে: আল্লামা বাবুনগরী- জনকল্যাণ২৪

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব, হাটহাজারী মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও শিক্ষা পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন,রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করে অমার্জনীয় অপরাধ করেছে ফ্রান্স সরকার। নবীজী (সা.) এর অবমাননা করে পৃথিবীর দুই’শ কোটি মুসলমানের কলিজায় ছুরিকাঘাত করেছে।
অনতিবিলম্বে ফ্রান্স সরকার এর জন্য ক্ষমা না চাইলে মুসলিমবিশ্ব আন্দোলনে উত্তাল হয়ে উঠবে।

গতকাল ৪ ঠা নভেম্বর বুধবার ফ্রান্সে রাসুল সা. এর অবমাননার প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ বৃহত্তর ফটিকছড়ি থানার উদ্যোগে বিবিরহাট ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

আল্লামা বাবুনগরী বলেন,বিভিন্ন সময়ে ব্যক্তিগতভাবে আমাদের নবীজি সা. এর অবমাননা হলেও পৃথিবীর ইতিহাসে একমাত্র ফ্রান্স সরকার-ই রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের অবমাননাকর কার্টুন প্রদর্শন করছে। ইসলাম ও মুসলমানের চরম দুষমন ফ্রান্স সরকার ইমানুয়েল ম্যেঁক্রো বর্তমান সময়ের ফিরআউন।

ব্যবসায়ীদের প্রতি আহবান জানিয়ে হেফাজত মহাসচিব বলেন, আপনারা ফ্রান্সের সকল পণ্য বর্জন করুন। যাদের দোকানে এখনো ফ্রান্সের কোন পণ্য আছে নবীজি সা. এর অবমাননার প্রতিবাদ হিসেবে সেগুলো সরিয়ে ফেলুন।যেই ফ্রান্স আমাদের কলিজার টুকরা নবী মুহাম্মদ সা. এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করেছে তাদের কোন পণ্য ঈমানদার ব্যবহার করতে পারে না। মুসলমান রাষ্ট্রে তাদের কোন পণ্য চলতে পারে না।

বাংলাদেশ ৯০% মুসলমানের দেশ উল্লেখ করে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন,বাংলাদেশের মানুষ ইসলাম প্রিয়,নবীপ্রেমিক। বাংলাদেশের সরকারও মুসলমান। তাই নবীজীর প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করে ঈমানী দায়িত্ব হিসেবে রাষ্ট্রীয়ভাবে ফ্রান্সের এহেন জঘন্য কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাতে হবে।

তিনি আরো বলেন,হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত ফ্রান্স দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে উপস্থিত লক্ষ লক্ষ মানুষের বিশাল জনসমাবেশে আমি বাংলাদেশ সরকারের প্রতি জোর দাবী জানিয়ে স্পষ্ট ভাষায় বলেছি,
অনতিবিলম্বে ফ্রান্সের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে,ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করতে হবে,ফ্রান্সের দূতাবাস বন্ধ করে দিতে হবে। এবং রাষ্ট্রীয়ভাবে ফ্রান্সের সকল পণ্য বর্জনের ঘোষণা দিতে হবে।

আল্লামা বাবুনগরী বলেন, আমাদের এ আন্দোলন রাষ্ট্র বা সরকারের বিরুদ্ধে নয়।এ আন্দোলন ঈমানী আন্দোলন। নবীজীর প্রতি ভালোবাসার আন্দোলন। আমাদের দাবী আদায় না হলে প্রয়োজনে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে আরো কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

ওআইসি,আরবলীগ,সৌদি আরব সহ বিশ্বের সকল মুসলিম রাষ্ট্র প্রধানদেরকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ফান্সের বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানান হেফাজত মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

মাওলানা আবু মাকনুন মুহাম্মদ আজিজির সঞ্চালনায় জামিয়া আজিজুল উলুম বাবুনগর মাদরাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরীর সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন,বাবুনগরের মুহাদ্দিস মুফতী মাহমুদ হাসান ভুজপুরী,আল্লামা কুতুবউদ্দীন নানুপুরী,আল্লামা হাবীবুর রহমান কাসেমী নাজিরহাট,হাটহাজারী উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান,মাওলানা নাসির উদ্দীন মুনির,মাওলানা হারুন আজিজী নদভী,মাওলানা জুনাইদ বিন জালাল ভুজপুরী,মাওলানা আইয়ুব বাবুনগরী,কারী আবু সাঈদ রাবারবাগান,মাওলানা নেজাম ভুজপুরী,মাওলানা দিদার ইদিলপুরী,
মাওলনা মুফতী খালেদ আমতলী,মাওলানা হাবিবুল্লাহ আজাদি বাজার,মাওলানা নাছির জাফতনগর,মাওলানা মাহমুদ শাহ ধর্মপুরী, মুফতী রহীমুল্লাহ শাহনগরী,মাওলানা গোলাম রব্বানী ইসলামবাদী

মাওলানা হাবিবুল্লাহ,নিচিন্তাপুরী,মাওলানা সেলিম দৈলতপুরী,মাওলানা শফী মুনাফকিল,মাওলানা ওসমান চাড়ালিয়াহাট,মাওলানা জুনাইদ রাঙ্গামাটিয়,কারী নোমান,চাড়ালিয়াহাট,মাওলানা আমির উদ্দীন ,মাওলানা আফাজ উদ্দীন,মাওলানা আইয়ুব আনছারি,মাওলানা আজিজুর রহমান,মুফতী মামুন তালিমুদ্দীন প্রমূখ।

সমাবেশ শেষে আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী ও আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর নেতৃত্বে একটি বিশাল মিছিল বের হয়।মিছিলটি বিবিরহাট ঈদগাহ ময়দান থেকে কলেজ রোড হয়ে বাস স্টেশন এসে মিলিত হয়। পরে আল্লামা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরীর দুআর মাধ্যমে সমাবেশ সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ