শেখ রাসেলের জন্মদিনে লালমোহনে বিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসা সেবা-জনকল্যাণ২৪

প্রকাশিত: ৩:৩৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০২০

শেখ রাসেলের জন্মদিনে লালমোহনে বিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসা সেবা-জনকল্যাণ২৪

মাহদী জাকির :: আজ ২০ সেপ্টেম্বর (মঙ্গলবার) সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের ৫৭ তম জন্মদিন উপলক্ষে লালমোহন পৌরসভার ১১ নং ওয়ার্ড এর ভাঙ্গা পোল নুরুল হক মাষ্টার বাড়ি দরজায় বিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম এর শুভ উদ্বোধন করেন ভোলা-৩ (লালমোহন-তজুমদ্দিন) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন।

এ উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি এমপি শাওন বলেন, আমার নির্বচনী কমিটমেন্ট ছিল এই এলাকার গরীব দু:খী মানুষের উন্নয়নের জন্য কাজ করব। এই এলাকার মানুষের জন্য কিছু করতে পারলেই আমি আত্নতৃপ্তিতে ভোগী। আজ এখানে গরীব অসহায় অতিদরিদ্র পরিবারের লোকজনদেরকে বিনা মূল্যে চোখের চিকিৎসা দেয়া হবে। মানুষের অঙ্গ প্রত্যঙ্গের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হলো চোখ। যাদের আর্থিক অচ্ছলতার কারনে চোখের চিকিৎসা করাতে পারেন না। তাদের জন্য বিনামূল্যে নেত্রনালী অপারেশন, চশমাসহ বিভিন্ন উপকরন দেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, যার জন্মদিন উপলক্ষ্যে আমরা আজকের এই কার্যক্রম কার্ক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে তিনি হলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেল। সে ছিল অত্যন্ত মেধাবী ও চোখস। স্বাধীনতার পর বাংলাদেশ যেভাবে ধীরে ধীরে সফলতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল। শিশু রাসেলও ঠিক সেভাবে বেড়ে উঠছিল। আপনার জানেন, ৭১ এর পরাজিত শক্তি খুনি মোসতাক গংরা ৭৫ এর ১৫ আগষ্ট জাতির পিতাসহ তার পরিবারের সকলেকে হত্যা করেছিল। শিশু শেখ রাসেলকে তার মায়ের কাছে নিয়ে যাবে বলে দেয়ালের সাথে ঠেকিয়ে জঘন্যভাবে হত্যা করেছিল। যা ছিল ইতিহাসের নিষ্ঠুরতম হত্যাকান্ড। জাতির পিতার কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা সেই খুনিদের বিচারের আওতায় এনেছিল। খুনিদের মধ্যে যারা এখনও বিভিন্ন দেশে রয়েছে তাদেরকে কুটনৈতিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে দেশে ফিরিয়ে এনে অনতিবিলম্বে তাদের ফাঁসির রায় কার্যকর করা হোক।

বিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসার সহায়তায় ছিল ইস্পাহানি ইসলামিয়া চক্ষু ইনষ্টিটিউট এবং হাসপাতাল বরিশাল শাখা। আয়োজনে ছিল লালমোহন পৌরসভার ১১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ ফরিদ উদ্দিন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলোয়াত করেন মাওলানা আবু তাহের। অনান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইস্পাহানি ইসলামিয়া চক্ষু ইনষ্টিটিউট এবং হাসপাতাল এর ডাঃ শামীম আহমেদ, ডাঃ সাইফুল ইসলাম, স্থানীয় সাবেক মেম্বার আলহাজ্ব আবুল হাসেম মিয়া প্রমূখ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ