কানাইঘাটে কিশোরী ধর্ষণের ভিডিও ফাঁস, মূল আসামী পলাতক-জনকল্যাণ২৪

প্রকাশিত: ৯:৪৭ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০২০

কানাইঘাটে কিশোরী ধর্ষণের ভিডিও ফাঁস, মূল আসামী পলাতক-জনকল্যাণ২৪

মীম সালমান :: কানাইঘাট উপজেলায় ১৩ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের ভিডিও স্যোস্যাল মিডিয়ায় ফাঁস করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে ঐ কিশোরীর পরিবার। গত মার্চ মাসে সংঘটিত এ ধর্ষণের ঘটনায় দুই নম্বর আসামীকে গ্রেফতার করা হলেও মামলার মূল আসামী শাহ ছাদুক এখনও পলাতক রয়েছে।

বিগত ১৭ মার্চ কানাইঘাটের রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের ফতেহগঞ্জ গ্রামের দুই যুবকের হাতে ধর্ষণের শিকার হয় ৮ম শ্রেণিতে পড়ুয়া ঐ কিশোরী। কিশোরীর পরিবার জানায়, ঐ যুবকেরা মেয়েটিকে মাদ্রাসায় যাওয়া আসার পথে প্রায়ই উত্যক্ত করতো। এ নিয়ে মেয়েটির বাবা গ্রাম্য মোড়লদের শরণাপন্ন হলে ঐ যুবকেরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। দুই যুবকের একজন শাহ ছাদুক (২০) মেয়েটিকে ঠাণ্ডা মাথায় ধর্ষণের পরিকল্পনা করে। তাদের এ পরিকল্পনা সফল হয় ১৭ মার্চ।

মামলার এজহারে উল্লেখ রয়েছে, ঘটনার দিন সকালে মেয়েটি তার ছোট বোনকে নিয়ে নির্জন হাওরের মধ্যবর্তী গ্রাম লোহাজুরীতে অবস্থিত মামার বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিল। মেয়ে দুটো যখন লোহাজুরী গ্রামের কাছাকাছি নির্জন সরিষা খালের পাড়ে পৌঁছায় তখন তারা হঠাৎ বুঝতে পারে- তাদেরকে পেছন থেকে দুটি লোক অনুসরণ করছে। কিন্তু তখন আর কোন উপায় ছিল না। শুষ্ক সরিষা খাল পাড়ি দেওয়ার পূর্বেই তারা ধরা পড়ে যায় ছাদুক ও তার সঙ্গীর হাতে। এই দুই বখাটে মিলে বড়ো মেয়েটিকে খালের পাড়ের ঝোপঝাড়ের কাছে নিয়ে যায় এবং পরণের ওড়না দিয়ে তার মুখ বেঁধে ফেলে।

এরপর ছোটবোনের সামনেই তাকে উলঙ্গ করে উপর্যুপরি ধর্ষণ করা হয়। শুধু তাই নয়, বখাটেরা মেয়েটির উলঙ্গ ভিডিও-ও ধারণ করে। মেয়েটির ছোটবোনের চিৎকার ও কান্নাকাটিকে কোন পাত্তাই দেয়নি বখাটেরা। এদিকে মেয়েদের মা তাঁর বাপের বাড়ীতে মেয়েদের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। দেরী দেখে তিনি মেয়েদের খোঁজে সরিষা খালের দিকে এগিয়ে আসলে চিৎকার ও কান্নাকাটির শব্দ শুনতে পান। ঘটনাস্থলে পৌঁছে তিনি ধর্ষকদেরকে পালিয়ে যেতে দেখেন।

এ ঘটনার পর কানাইঘাট স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের কতিপয় সদস্য বিষয়টিকে সংবাদ মাধ্যমে তোলে ধরলেও তা সাঁড়া ফেলেনি। ঐ সদস্যদের উদ্যোগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি সীমিত পর্যায়ে জানাজানি হলে কানাইঘাট থানা কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে তড়িৎ পদক্ষেপ নেন এবং একজন আসামীকে গ্রেফতার করতে সমর্থ হন। কিন্তু মূল আসামী শাহ ছাদুক পালিয়ে যায়। সে এখনও পলাতক রয়েছে।

এ ব্যাপারে কানাইঘাট স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন এবং সম্মিলিত সামাজিক জোটের পক্ষ থেকে কানাইঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জনাব শামসুদ্দোহা পিপিএম-এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ধর্ষক ছাদুকের ব্যাপারে তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে সহায়তা করার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানান। এ ঘটনায় কানাইঘাট থানায় দায়েরকৃত মামলার স্মারক নং: ১২৩৫ (৪) / ১, মামলার তারিখ: ২২/০৩/২০২০, মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা: মো. আনোয়ার জাহিদ)

বার্তা প্রেরক,
আসিফ আযহার
সভাপতি, কানাইঘাট স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন
যোগাযোগ: ০১৮১৬ ৯৪ ৭৩ ২৩

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ