স্বাস্থ্যবিধির নামে গণপরিবহনের অতিরিক্ত ভাড়া প্রত্যাহার করুন: শাব্বির আহমদ- জনকল্যাণ২৪

প্রকাশিত: ৫:০৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৫, ২০২০

স্বাস্থ্যবিধির নামে গণপরিবহনের অতিরিক্ত ভাড়া প্রত্যাহার করুন: শাব্বির আহমদ- জনকল্যাণ২৪

মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতিতে বাসের ৬০ শতাংশ অতিরিক্ত ভাড়া প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশর কেন্দ্রীয় মাদরাসা বিষয়ক সম্পাদক ও গাজীপুর মহানগর ছাত্র জমিয়ত এর সভাপতি মুফতী শাব্বির আহমদ।

শনিবার (১৫ আগস্ট) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে গাজীপুর মহানগর সভাপতি মুফতী শাব্বির আহমদ এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, এখন দেশের গণপরিবহন গুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। যেসব শর্তে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের কথা বলা হয়েছিল তার কোনোটাই এখন মানা হচ্ছে না। সেই পুরনো কায়দায় গাদাগাদি করে যাত্রী বহন করে যাচ্ছে গণপরিবহন।

মহানগর সভাপতি বলেন, করোনাকালীন ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সরকারের অতিরিক্ত ৬০ শতাংশ ভাড়ার চেয়েও অধিকাংশ রুটে দ্বিগুণ ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। এতে করোনা সংকটে কর্মহীন ও আয় কমে যাওয়া দেশের সাধারণ মানুষের যাতায়াত দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে।

‘সরকার যাত্রীপ্রতিনিধি বাদ দিয়ে মালিকদের পাতানো ফাঁদে পা দিয়ে করোনার এই মহাসংকটে থাকা দেশের অসহায় জনগণের ওপর একচেটিয়াভাবে বাসের ভাড়া ৬০ শতাংশ অতিরিক্ত করে অযৌক্তিকভাবে চাপিয়ে দিয়েছে। ফলে দেশব্যাপী চলাচলরত বাস-মিনিবাসের সঙ্গে লেগুনা, হিউম্যান হলার, টেম্পু, অটোরিকশা, প্যাডেলচালিত রিকশা, ইজিবাইক, নসিমন-করিমন, টেক্সিক্যাবসহ সকল প্রকার যানবাহনের ভাড়া প্রায় দ্বিগুণ আদায় করে যাচ্ছে।’

গাজীপুর মহানগর সভাপতি মুফতী শাব্বির আহমদ আরো বলেন, এতে যাত্রীস্বার্থ চরমভাবে উপেক্ষিত হয়। ভাড়া নৈরাজ্য ও যাত্রী হয়রানিকে আরেক দফা উসকে দেয়া হয়। ওই সময়ে জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমীর পক্ষ থেকে এই ভাড়া বৃদ্ধির তীব্র বিরোধিতা করা হয়েছিল। এবং ভাড়া না বৃদ্ধি করে তেল গ্যাসের দাম কমানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু তা আমলে নেয়নি সরকার।

অনতিবিলম্বে স্বাস্থ্যবিধির নামে গণপরিবহনের অতিরিক্ত ভাড়া প্রত্যাহার করে, পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানিয়েছে ছাত্র নেতা মুফতী শাব্বির আহমদ।