আমিরাতের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুঁশিয়ারি এরদোয়ানের – জনকল্যাণ২৪

প্রকাশিত: ৪:৪৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৫, ২০২০

আমিরাতের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুঁশিয়ারি এরদোয়ানের – জনকল্যাণ২৪

ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্বাক্ষরিত ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তিকে কেন্দ্র করে আমিরাতের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান।

শনিবার (১৫ আগস্ট) সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এরদোয়ান এ হুঁশিয়ারি দেন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, এই চুক্তির জেরে আরব আমিরাত থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূতকেও প্রত্যাহার করে নিতে পারে তুরস্ক। আরব আমিরাত এবং ইসরায়েলের মধ্যে শান্তি চুক্তির পরই দেশটির প্রেসিডেন্ট এ ঘোষণা দেন।

এরদোয়ান বলেছেন, আমিরাতের এই পদক্ষেপকে কোনোভাবেই মেনে নেবে না তার দেশ। আমিরাতের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থগিত করা অথবা সেখান থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূতকে প্রত্যাহার করার ব্যাপারে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপ করেছেন বলে তিনি জানান।

চুক্তির বিষয়ে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ইতিহাস সংযুক্ত আরব আমিরাতকে কখনও ক্ষমা করবে না। ফিলিস্তিনি নেতারা এই চুক্তিকে তাদের পেছনে ছুরিকাঘাত বলে নিন্দা করেছেন।

এদিকে, এই চুক্তির ফলে ইসরাইল অধিকৃত পশ্চিম তীরের দখলি পরিকল্পনা বন্ধ করবে বলে জানিয়েছে আরব আমিরাত।

ইসরায়েল ও আমিরাতের এই ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তি প্রত্যাখ্যান করেছে ফিলিস্তিনও। এই চুক্তির তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ইরান। তেহরান বলেছে, এই চুক্তি করে আমিরাত মূলত কৌশলগত নির্বুদ্ধিতার পরিচয় দিয়েছে।

১৯৪৮ সালে ইসরায়েলের স্বাধীনতার ঘোষণার পর ইসরায়েল ও আরবের মধ্যে এটি তৃতীয় চুক্তি। এর আগে মিসর ১৯৭৯ সালে ও জর্ডান ১৯৯৪ সালে চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ