কারাগারের কেইস টেবিলে ওসি প্রদীপের সাথে সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফার সাক্ষাৎ- জনকল্যাণ২৪

প্রকাশিত: ৯:২৮ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৮, ২০২০

কারাগারের কেইস টেবিলে ওসি প্রদীপের সাথে সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফার সাক্ষাৎ- জনকল্যাণ২৪

ওসমান আল হুমাম কক্সবাজার জেলা বিশেষ প্রতিনিধি: সাংবাদিক বেলাল আজাদ কারাগারের বিশেষ সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছেন। কক্সবাজার জেলা কেন্দ্রীয় কারাগারের কেইস টেবিলে আজ (৭ আগস্ট) সকাল ৮ টায় সকালে মুখোমুখি হয় টেকনাফের আলোচিত সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খানের।

কারাগারের নিয়ম মাফিক নয়া কয়েদিদেরকে কারাগারে প্রবেশের পরদিনই সকালে কারা কেইস টেবিলে উপস্থিত করা হয়। তখনি নতুনদের সাথে পুরাতন হাজতিদের সাথে সংক্ষিপ্ত সাক্ষাতে সুযোগ মিলে।

বিতর্কিত ওসি প্রদীপ কর্তৃক মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে কারাবন্দী অনেক হাজতীরা একনজর সাবেক এ আলোচিত ওসি’কে কেইস টেবিলে দেখে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলে।

কক্সবাজারের সিনিয়র সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা গত ১৩ মাস যাবত কারাগারে বন্দি। তিনি প্রদীপ কুমার দাশের ক্রস ফায়ার বাণিজ্য ও কতিপয় অসাধু পুলিশ কর্মকর্তাদের সাথে মাদক কারবারি রাঘব বোয়ালদের দহরম বহরম মৌন সম্মতির ধারাবাহিক সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খানকে মিথ্যা মামলা দায়ের করে তার ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালানো হয়। তার চোখে মরিচে গুড়ো দিয়ে দু’খের দৃস্টি শক্তির প্রখরতা নিস্তেজ করে দেওয়া হয়। শুধু তাই নয় নির্যাতনের পর বিদেশি মদ, ইয়াবা ও অস্ত্র দিয়ে মামলা করে কোর্টে চালান দেয়া হয়েছে।
এছাড়াও তাকে কয়েকটি মিথ্যা অস্ত্র ও মাদক মামলা দিয়ে জেল কাটানো সেই ওসি প্রদীপও এখন একই কারাগারের সঙ্গী।

কক্সবাজারের সিনিয়র সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা গত ১৩ মাস যাবত কারাগারে বন্দি। তিনি জাতীয় দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি ও দৈনিক কক্সবাজার বাণীর সাবেক সম্পাদক ও প্রকাশক। সর্বশেষ দৈনিক জনতার বাণী নামে পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক হিসেবে অনলাইন সংস্করণে নিয়োজিত ছিলেন।
সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফার ন্যায় ওসি প্রদীপের হাতে টেকনাফের স্থানীয় আরেক সাংবাদিক ইয়াছিন আরাফাতকেও একই কায়দায় মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে তার ওপর নির্যাতনের স্টিম রোলার চালানোর বিস্তর অভিযোগ রয়েছে।

কক্সবাজার জেলার সিনিয়র সাংবাদিক আহমদ গিয়াস মহোদয় সহযোদ্ধা মোস্তফার প্রতি ওসি প্রদীপ কতৃক পৈশাচিক কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করায় তাঁকেও নানা কাঠখড় পুড়ে বাঁচতে হয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ