দিল্লি দাঙ্গায় ক্ষতিগ্রস্ত ৯৭টি দোকান ও একটি মসজিদ পুনর্গঠন করল জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ

প্রকাশিত: ১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৭, ২০২০

দিল্লি দাঙ্গায় ক্ষতিগ্রস্ত ৯৭টি দোকান ও একটি মসজিদ পুনর্গঠন করল জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ (জেইউএইচ) দিল্লির গোকালপুরি টায়ার বাজারে ৯৭টি দোকান পুনরায় চালু করার জন্য একটি উদ্বোধন কর্মসূচির আয়োজন করে। পূর্ব দিল্লির জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শশী কাউশাল, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আর আর আগরওয়াল এবং আঞ্চলিক এসডিএমের উপস্থিতিতে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ-এর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মাহমুদ মাদানি ভিডিয়ো কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

উত্তর-পূর্ব দিল্লির গোকালপুরী টায়ার বাজার এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে ধ্বংসাত্মক একতরফা দাঙ্গার ফলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল মুসলিমদের বাড়িঘর ও দোকানগুলি। আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়ার জন্য হামলাকারীরা সম্পূর্ণ ধ্বংসাত্মক ভূমিকা নিয়েছিল বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। গ্রাউন্ডওয়ার্ক এবং পুনর্নির্মাণে জড়িত জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ বাজারের অভ্যন্তরে মোট ৯৭টি দোকান এবং একটি মসজিদ পুনর্গঠনে সহায়তা করেছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ বাজারটির নাম ‘জমিয়ত টায়ার মার্কেট’ হিসাবে নামকরণ করেছে। এরপরে পুনর্নির্মিত দোকানগুলি তাদের মালিকদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ সদস্যরাও বিভিন্ন জায়গায় গাছের চারা রোপণ করেন।

উদ্বোধনের পরে মাওলানা মাহমুদ মাদানি দোকান মালিকদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলেন যে, জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ মানবতাবাদী দৃষ্টিভঙ্গির প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং মানবজাতির জন্য পরিষেবা তার সর্বোচ্চ দায়িত্ব। তিনি আরও বলেন– আমরা একটি ধর্মীয় সংস্থা– রাজনৈতিক মাইলেজ পাওয়ার জন্য এসব করি না।

জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ-এর সেক্রেটারি মাওলানা নিয়াজ আহমদ ফারুকি ও মাওলানা হাকিমুদ্দিন কাসমি বলেছেন যে, ত্রাণ ও পুনর্নির্মাণ ব্যবস্থায় তারা যা করেছে, তা দিল্লি ও কেন্দ্রীয় সরকারের করা উচিত ছিল। ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তার জন্য জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ-এর সচিবরা তাদের কাছে প্রতিশ্রুতির কথা পুনর্ব্যক্ত করেছেন।
জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ দিল্লি সরকারকে এক তরফা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেছেন, সেইসঙ্গে সাহায্যের পরিমাণ এবং ক্ষতিপূরণ বাড়ানো উচিত বলেও জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ দাবি জানিয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ