জলমগ্ন চট্টগ্রাম, দুর্ভোগে জনগণ – জনকল্যাণ২৪

প্রকাশিত: ৯:৫৮ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২০

জলমগ্ন চট্টগ্রাম, দুর্ভোগে জনগণ – জনকল্যাণ২৪

তিনদিনের টানা বর্ষণে জলমগ্ন হয়ে পড়েছে চট্টগ্রাম নগরী। মঙ্গলবার সকাল থেকে কখনও ভারি বর্ষণ, কখনও থেমে থেমে বৃষ্টিতে ডুবেছে নগরীর বেশকিছু নিচু এলাকা। হাসপাতাল, আবাসিক এলাকাসহ নগরীর বিভিন্ন সড়ক-উপসড়কের ওপর দিয়ে বয়ে গেছে বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের পানি। এতে নগরবাসী বিশেষ করে কর্মস্থলে আসা-যাওয়ার পথে নাগরিকরা মারাত্মক দুর্ভোগে পড়েন।

এদিকে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বৃষ্টি বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে এবং শুক্রবার থেকে কমতে পারে। দেশের সব সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর এবং নদী বন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

টানা বৃষ্টিতে পানি উঠেছে নগরীর হালিশহর এ-ব্লক, হালিশহর বি-ব্লক, পাহাড়তলীর শাপলা আবাসিক এলাকা, সবুজবাগ নয়াবাজার বিশ্বরোড, আগ্রাবাদ সিডিএ আবাসিক এলাকা, রঙ্গিপাড়া, মহুরিপাড়া, ছোটপুল, জিইসি মোড়, ষোলশহর ২ নম্বর গেট, চকবাজার, বাকলিয়াসহ নগরীর বেশকিছু এলাকায়। এসব এলাকায় হাঁটু থেকে কোমরসমান পানি উঠেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে আগ্রাবাদ এলাকায় অবস্থিত মা ও শিশু হাসপাতাল। এ হাসপাতালের নিচতলায় হাঁটু পানি জমে গেছে। এ কারণে ব্যাহত হয়েছে চিকিৎসাসেবা। চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে নিচতলায় চিকিৎসা নেয়া রোগীদের। তবে মা ও শিশু হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, বৃষ্টি কিংবা জোয়ারের পানিতে মা ও শিশু হাসপাতালের নিচতলা ডুবে যাওয়ার দৃশ্য পুরোনো। এ দুর্ভোগ থেকে রক্ষা পেতে কর্মকর্তারা উপায় খুঁজছেন।

এদিকে বৃষ্টির কারণে সড়কের বিভিন্ন স্থানে পানি জমে যাওয়ায় সড়কেই আটক পড়ে শত শত যানবাহন। এ কারণে জরুরি প্রয়োজনে বের হওয়া লোকজন ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকা পড়ে। নগরীর আক্তারুজ্জামান ফ্লাইওভারেও বিভিন্ন স্থানে পানি জমে যেতে দেখা গেছে। ফ্লাইওভারের বিভিন্ন স্থানে পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এমনটাই হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। চট্টগ্রাম আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়া কর্মকর্তা উজ্জ্বল কান্তি পাল যুগান্তরকে বলেন, ‘মঙ্গলবার বিকাল ৩টা পর্যন্ত চট্টগ্রামে ৩৩ দশমিক ৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ১২টার পর বৃষ্টিপাত বাড়তে পারে। শুক্রবারের দিকে বৃষ্টিপাত কমতে পারে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।’

সূত্র : যুগান্তর।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ