সিলেটে ৮ দফা দাবিতে বামজোটের সমাবেশ – জনকল্যাণ২৪

প্রকাশিত: ৮:২০ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৬, ২০২০

সিলেটে ৮ দফা দাবিতে বামজোটের সমাবেশ – জনকল্যাণ২৪

১৬ জুলাই (বৃহস্পতিবার) বিকাল ৩ টায় নগরীর রিকাবীবাজার পয়েন্টে স্বাস্থ্যখাতে দুর্নীতি, লুটপাট বন্ধসহ ৮ দফা দাবিতে সমাবেশ করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট সিলেট জেলা।

বাম গণতান্ত্রিক জোট সিলেট জেলার সমন্বয়ক ও বাসদ (মার্কসবাদী) সিলেট জেলার আহ্বায়ক কমরেড উজ্জ্বল রায়ের সভাপতিত্বে ও বাসদ নেতা প্রণব জ্যোতি পালের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন, বাসদ সিলেট জেলার সমন্বয়ক কমরেড আবু জাফর, কমিউনিস্ট পার্টি সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক অ্যডভোকেড আনোয়ার হোসেন সুমন, যুব ইউনিয়ন সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক নিরঞ্জন দাশ খোকন, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান আহমেদ, বাসদ(মার্কসবাদী) সিলেট জেলার সদস্য রেজাউর রহমান রানা, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট সিলেট নগর শাখার সভাপতি সঞ্জয় কান্ত দাস,বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক নাবিল হোসেন,সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট সিলেট মহানগর শাখার আহ্বায়ক সঞ্জয় শর্মা প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘দেশের স্বাস্থ্যখাতে আজ এক অরাজক পরিস্থিতি বিরাজ করছে। সরকার বিনামূল্যে করোনা পরীক্ষা না করে বরং নো টেস্ট, নো করোনা নীতি গ্রহণ করেছে। স্বাস্থ্যখাতে দুর্নীতি, লুটপাট বন্ধ না করে বরং নানা ভাবে তার প্রশ্রয় দিচ্ছে। লাইসেন্স বিহীন রিজেন্ট হাসপাতাল হাজার হাজার ভুয়া রিপোর্ট তৈরি করে। এর দায়ভার সরকারের। এর সঙ্গে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। সিলেটের চিত্রও এর ভিন্ন কিছু নয়। সিলেটে প্রতিদিন যেখানে দুই হাজার নমুনা পরীক্ষার প্রয়োজন সেখানে হচ্ছে দুইশোরও কম। অবিলম্বে সিলেটে এই টেস্টের সংখ্যা বাড়াতে হবে। দেশে যখন আরও বেশি স্বাস্থ্যকর্মী দরকার তখন ওসমানী মেডিকেল কলেজের ৮২ জন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের সিন্ডিকেটের স্বার্থ রক্ষার জন্য ছাটাই করা হয়েছে। আমরা তার তীব্র নিন্দা জানাই এবং অবিলম্বে তাদের চাকরিতে বহালের দাবি জানাই।’ এসময় নেতৃবৃন্দ স্বাস্থ্যখাতে সীমাহীন লুটপাটের দায়ে ব্যর্থ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেন। এছাড়া আগামী ২২ জুলাই জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচিতে সিলেটের সকল জনগণকে উপস্থিত হওয়ার আহ্বানও জানান তারা।

এসময় সিলেটের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সমস্যা-সংকট সুনির্দিষ্ট করে ৮দফা দাবি তুলে ধরেন বক্তারা। দাবি সমূহ হল, অবিলম্বে সিলেট জেলায় প্রতিদিন ২ হাজার করোনা পরীক্ষা ও বুথের সংখ্যা বৃদ্ধি এবং ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রিপোর্ট প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় পিসিআর ল্যাব ও আনুষঙ্গিক ব্যবস্থা করতে হবে, করোনা রোগীর চিকিৎসার জন্য আরও কমপক্ষে ১০০০ শয্যা (আইসিইউ ও ভেল্টিলেটর) সহ বৃদ্ধি করতে হবে, বেসরকারি হাসপাতালসমূহ সরকার কর্তৃক আপতকালীন সময়ে অধিগ্রহণ করে সরকারী নিয়ন্ত্রণে বিনামূল্যে জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে, করোনা পরীক্ষায় নির্ধারিত ফি বাতিল করে বিনামূল্যে সকল নাগরিকদের করোনা পরীক্ষা ও চিকিৎসা দিতে হবে, খাদ্য সরবরাহসহ আনুষঙ্গিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করে রেড জোন চিহ্নিত এলাকায় অবিলম্বে লকডাইন নিশ্চিত করতে হবে, ৩য়-৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের স্থায়ী নিয়োগ দিতে হবে এবং আপতকালীন সময়ে সিভিল সার্জনের মাধ্যমে মাস্টাররোলে নিয়োগ দাও, আউটসোর্সিং প্রক্রিয়ায় নিয়োগপ্রাপ্ত ৮২ জনকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে অপসারণ করা যাবে না, স্বাস্থ্যখাতে অনিয়ম-দুর্নীতি অব্যবস্থাপনা বন্ধ কর।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ