সৌদিআরবে চাকরি হারানোর হুমকিতে এক লাখেরও বেশী বাংলাদেশী- জনকল্যাণ ২৪

প্রকাশিত: ৬:৪৩ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০২০

সৌদিআরবে চাকরি হারানোর হুমকিতে এক লাখেরও বেশী বাংলাদেশী- জনকল্যাণ ২৪

জনকল্যাণ ডেস্ক: বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার হচ্ছে মধ্যপাচ্যের দেশ সৌদি আরব । দেশটিতে রয়েছে প্রায় ২৫ লাখ বাংলাদেশী । গত ৩ মাসে ১ লাখের ও বেশী ছুটিতে এসেছিলো বাংলাদেশে কিন্তু বর্তমান করোনা মহামারির কারণে কেউই এখনো ফেরত যেতে পারেনি সৌদি আরব নিজ কর্মস্থলে ।

এদিকে সৌদি আরব এক সংবাদ সুত্রে জানা যায় , যারা বর্তমানে ছুটিতে দেশের বাহিরে আছেন তাদের ইকামার মেয়াদ আর বাড়ানো হবেনা । আর চাইলেও আর সৌদি আরব এখন প্রবেশ করতে পারবেনা যতদিন না পর্যন্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হয় ততদিন পর্যন্ত প্রবেশ করতে পারবেনা কেউ ই  । এমনই সিদ্বান্তে হতাশ হয়ে পড়েছেন অনেক প্রবাসী বাংলাদেশী ।

বেসরকারি সংস্থা ব্রাকের হিসাব অনুযায়ী , চলতি বছর করোনা পরিস্থিতির আগে ফ্লাইট যখন চালু ছিলো তখন নাকি বিভিন্ন দেশ থেকে ২ লাখেরও বেশি প্রবাসী ছুটি কাটাতে দেশে এসেছিলেন ।

ব্র্যাকের অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান শরিফুল হাসান জানান, ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি থেকে মার্চে ফ্লাইট চলাচল বন্ধের আগ পর্যন্ত সৌদি আরব থেকে ৪১ হাজারের মতো শ্রমিক দেশে ফিরেছেন। পরে চার্টার্ড বিমানে ফিরেছেন আরও ১৩ হাজারের বেশি, এদেরও একটি বড় অংশ সৌদি আরব থেকে এসেছেন। এছাড়া, গত তিন মাসে সৌদি আরবে যাওয়ার কথা ছিল এমন শ্রমিকের সংখ্যা ৫০ হাজারের বেশি।

তারা আরো জানায় , বাংলাদেশ থেকে প্রতি মাসে গড়ে ৫০ থেকে ৬০ হাজার মানুষ কর্ম সংস্থানের জন্য বিদেশে পাড়ি জামান । এই বেশিরভাগ ই হচ্ছে সৌদি আরবে । দেশটিতে গত জানুয়ারি মাসে গেছে অন্তত ৫২ হাজার মানুষ । ফেব্রুয়ারিতে ৪৪ হাজার আর মার্চে ফ্লাইট বন্ধের আগ পর্যন্ত গেছেন ৩৮ হাজার মানুষ।

সম্প্রতি সৌদি আরবের ইংরেজি দৈনিক সৌদি গেজেটে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, মহামারির কারণে এ বছর সৌদির শ্রমবাজারে ১২ লাখ বিদেশী কর্মী চাকরি হারাবেন। প্রতিবেদনটিতে একটি স্থানীয় গবেষণা সংস্থার বরাত দিয়ে বলা হয়, নির্মাণ খাত, পর্যটন (হজ), রেস্তোরাঁসহ বিভিন্ন খাতে এই চাকরিচ্যুতি ঘটতে পারে।

তবে এইদিকে বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যান সংস্থা দাবি করেন , সৌদি আরব থেকে কর্মী চাটাই এর ব্যাপারে এখনো কোন কিছু তাদের কে জানানো হয়নি ।

তারা জানান , বর্তমানে সৌদি আরবে যারা বৈধ রয়েছেন তাদের অবস্থান  আরো সুদৃঢ় করার জন্য সৌদি আরব সরকার এর সাথে আলোচনা চলতেছে বলে তারা আমাদের আস্বস্থ করেন ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ