বড় বড় বহু শ্রেষ্ঠত্ব নারীরাই নিয়েছে লুফে

প্রকাশিত: ৯:২৬ পূর্বাহ্ণ, জুন ২২, ২০২০

বড় বড় বহু শ্রেষ্ঠত্ব নারীরাই নিয়েছে লুফে

এইচ এম মাসুদ

হ্যা, আমি একটি ঘটনার বিবরণ দিচ্ছি। হে পবিত্র ও সম্মানিত এবং সম্ভ্রান্ত বোন, শুধু তোমার জন্যে।
কেননা তুমি আমাদের কাছে সবচেয়ে দামি।
তুমিই এই সমাজের অর্ধেক আর বাকী অর্ধেকেরও তুমি জননী। হ্যা, তুমি জন্ম দাও সুযোগ্য খতীব ও দরদী ইমাম। তুমি প্রতিপালন কর বীর যোদ্ধা ও বিচক্ষণ সেনাপতি। তাই আমার পক্ষ থেকে তোমার প্রতি কিছু কথা ও ঘটনা, কিছু চিন্তা ও ভাবনা।
হয়তো তা তোমার মনের মনিকোঠায় প্রবেশ করবে। তোমার অবচেতন মনে এনে দিবে চৈতন্য।
নারীরা পুরুষদের সহযাত্রী। তাই পুরুষদের মাঝে আছে সুমহান আলেম ও প্রতিভাবান দাঈ,
তেমনি আছে নারীদের মাঝেও। পুরুষদের মাঝে যেমন রয়েছে দিনের সিয়ামপালনকারী ও রাতের তাহাজ্জুদগুজার, নারীদের মাঝেও আছে তেমনই।
অনেক নারীতো পুরুষকেও ছাড়িয়ে গেছে সৎকথা ও কর্মে।
ছাড়িয়ে গেছে ইবাদত বন্দেগী, দীনের সাহায্য ও দান-সদকায়। বরং ইতিহাস পড়লে তুমি দেখবে, বড় বড় শ্রেষ্ঠত্ব নারীরাই নিয়েছে লুফে।
সর্বপ্রথম যিনি পবিত্র হারামে বসবাস করেছেন,
সাফা-মারওয়ায় দৌঁড়িয়েছেন – তিনি একজন নারী। তিনি ইসমাঈল (আ.) এর জননী হাজেরা (আ.)।
সর্বপ্রথম যিনি ইসলাম গ্রহণ করেছেন ও নবী সাল্লালাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে সাহায্য করেছেন তিনিও একজন নারী। তিনি হলেন উম্মুল মুমিনিন খাদিজা রাযি.। সর্বপ্রথম যিনি তার মাওলার জন্য কঠিন থেকে কঠিন শাস্তি ভোগ করেছেন ও ইসলামের জন্য শাহাদাত বরণ করেছেন- তিনিও একজন নারী। তিনি আম্মার বিন ইয়াছিরের জননী সুমাইয়া রাযি.।

তাই বলি হে মা-বোনেরা, তাদের জীবনী থেকে
উপদেশ গ্রহণ করুন এবং এই উপদেশ মোতাবেক আপনার জীবনকে পরিচালনা করুন। তাহলেই আপনি পেয়ে যাবেন রবের দেওয়া সেই সম্মান এবং রবের ঘোষণা চিরস্থায়ী সেই জান্নাত।

লেখক: ভোলা জেলা প্রতিনিধি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ