মর্যাদার মানদণ্ড খোদাভীরুতা

প্রকাশিত: ৯:৩১ পূর্বাহ্ণ, জুন ২১, ২০২০

মর্যাদার মানদণ্ড খোদাভীরুতা

এইচ এম মাসুদ

আল্লাহ তাআলার নিকট নারী-পুরুষের মাঝে শ্রেষ্ঠত্বের একমাত্র মাপকাঠি হল ‘তাকওয়া,।
কারণ কোরআনে আল্লাহ তাআলা বলেন –

یایها الناس انا خلقنکم من ذکر وانثٰی وجعلنٰکم شعوبا وقباٸل لتعارفوا ان اکرمکم عند الله اتقٰکم

অর্থ: ‘হে মানুষ, আমি তোমাদেরকে এক পুরুষ ও এক নারী থেকে সৃষ্টি করেছি এবং তোমাদেরকে বিভিন্ন জাতি ও গোত্রে বিভক্ত করেছি, যাতে তোমরা পরস্পর পরিচিত হও। নিশ্চয়ই আল্লাহর কাছে সে-ই সর্বাধিক সম্ভ্রান্ত যে সর্বাধিক মুত্তাকি (খোদাভীরু)।
(সূরা হুজরাত: আয়াত ১৩)
অর্থাৎ, দৈহিক সামর্থ্য, সম্পদ ও প্রাচূর্য, পুরুষালি শক্তিমত্তা কোনোকিছুই মর্যাদা ও মহত্ত্বের মাপকাঠি নয়।
মর্যাদা বৃদ্ধির একমাত্র মাপকাঠি হল তাকওয়া।
আহা! অবলা, সরলা যেসব মা-বোনেরা আজ নারী-স্বাধীনতার ফাঁকা বুলি শুনে প্রতারণার শিকার হচ্ছে, তারা যদি এ কথাগুলো বোঝতে পারত। হায়! তারা যদি এ কথা অনুধাবন করতে পারত যে, তাদের সাথে আল্লাহর কোনো শত্রুতা নেই। পুরুষের মতো তারাও আল্লাহর সৃষ্টি।  তারা চাইলে তাকওয়া-পরহেযগারীতার ময়দানে পুরুষ থেকেও অগ্রগামী হতে পারে।

নারী যত নিজে নিজেকে মর্যাদা দেবে, চারপাশের লোকজন তাকে তত সম্মান করবে। তাই যতদিন সে থাকবে বিশ্বস্ত ও আমানতদার, ততদিন সে থাকবে দামী ও মূল্যবান।
পক্ষান্তরে সে যদি হয় প্রতারক ও বিশ্বাসঘাতক, তবে তাকে হতে হবে লাঞ্চিত ও ধিকৃত।

তাই মা-বোনদের কাছে আমার সবিনয় অনুরোধ, ইসলামকে জানুন, বুঝুন এবং সে মোতাবেক জীবন গড়ুন।
তা হলে ইনশাআল্লাহ দুনিয়া এবং আখেরাত উভয় জগতেই শান্তি পাবেন।

লেখক: ভোলা জেলা প্রতিনিধি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ