মজলুম আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী; স্বপ্নযোগে রাসুল (সা.) এর দুআ।

প্রকাশিত: ৭:৫৪ পূর্বাহ্ণ, জুন ১২, ২০২০

মজলুম আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী; স্বপ্নযোগে রাসুল (সা.) এর দুআ।

এইচ এম মাসুদ, ভোলা: মানব চরিত্রের উৎকর্ষ সাধনই ইসলামের মূল লক্ষ্য। হাদীস শরীফে আছে,রাসুল (সা.) বলেন, ‘আমাকে পাঠানো হয়েছে সুন্দর চরিত্রের পূর্ণতা প্রদানের জন্য। (মুসলিম ও তিরমিজি)। চরিত্রের উত্তম গুণাবলির অন্যতম হলো সবর বা ধৈর্য। প্রতিকূলতার মধ্যে লক্ষ্য ঠিক রেখে, অবস্থার পরিবর্তনের জন্য সুযোগের অপেক্ষা করার নামই হলো সবর বা ধৈর্য।

ধৈর্য ধারণকারীর সাফল্য সুনিশ্চিত কারণ আল্লাহ তাআলা ধৈর্য ধারণকারীর সঙ্গে থাকেন; আর আল্লাহ রাব্বুল আলামিন যাঁর সঙ্গে থাকবেন তাঁর সফলতা অবধারিত। কোরআনুল কারিমে আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘হে মুমিনগণ! ধৈর্য ও সালাতের মাধ্যমে তোমরা সাহায্য প্রার্থনা করো। নিশ্চয়ই আল্লাহ ধৈর্যশীলদের সহিত আছেন।’ (সুরা: ২ বাকারা : ১৫৩)।

আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী হাফিযাহুল্লাহু একজন মজলুম আলেমেদ্বীন। দুই বছর যাবত হযরতের খেদমত ও সান্নিধ্যের দিনগুলোতে আমি স্বচক্ষে দেখেছি ভেতরে-বাইরে বহু দিক থেকে তিনি জুলুমের শিকার,মজলুম। তবে শত জুলুমের মধ্যেও কখনো হযরতকে বিন্দু পরিমাণ বিচলিত হতে দেখিনি। তিনি যেন সবরের সীসা ঢালা প্রাচীর, ধৈর্যের পাহাড়।

যারা ধৈর্য-নিষ্ঠার সাথে চেষ্টা (সবর) করে, আল্লাহ তায়া’লা অবশ্যই তাদের সাথে আছেন। তাঁদের সাথে আছে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের মকবুল দুআ। ক’দিনের আগের ঘটনা। হযরত বাবুনগরী হাফিযাহুল্লাহু তখন শারীরিকভাবে অসুস্থ ছিলেন আর হাটহাজারীর চলমান সংকটের মানসিক চাপ আর দুশমনদের করা সেহের যাদু তো আছেই । ফতেহপুর নাছিরুল ইসলাম মাদরাসার শিক্ষাসচিব ও আল্লামা বাবুনগরী হযরতের জামাতা মাওলানা আব্দুল্লাহ সাহেব দা.বা. বাবুনগরী হযরতের নিকট একটি মোবারক স্বপ্ন বর্ণনা করলেন। আমি নিজ কানে স্বপ্নের সেই বর্ণনা শুনেছি।

বাবুনগরী হযরতের কন্যা মুহতারামাহ খাদিজা বিনতে জুনায়েদ। তিনি স্বপ্নে দেখলেন- আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী হাফিযাহুল্লাহুর বাড়ির পূর্ব উত্তর পার্শ্বের পুকুর পাড়ে হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দাঁড়ানো আছেন। এবং সাথে আছেন একজন বড় আলেম। সাথে থাকা আলেম ব্যক্তি রাসুল সা.-কে বাবুনগরী হযরতের পরিবারের একজন সদস্যদের পরিচয় করিয়ে করিয়ে দিচ্ছেন এবং রাসুল সা. কেঁদে কেঁদে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী হাফিযাহুল্লাহুর জন্য দুআ করছেন। আল্লাহু আকবার…কত মোবারকময় স্বপ্ন।

স্বপ্নে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে দেখা কখনো মিথ্যা হতে পারে না।সহিহ বুখারী শরীফের হাদীসে আছে- রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন,যে ব্যক্তি আমাকে স্বপ্নে দেখল, সে আমাকেই দেখল। কেননা বিতাড়িত শয়তান আমার রূপ ধরতে পারে না। [বোখারি : ১১০]। স্বপ্নের ঘটনাটি বর্ণনা করার সময় আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী হাফিযাহুল্লাহুর ভাগ্নে, আমার শ্রদ্ধাভাজন উস্তাদ,প্রখ্যাত আরবী ভাষাবিদ মাওলানা আনোয়ার আযহারী দা.বা. ও হযরতে দীর্ঘদিনের সাহচর্যধন্য খাদেম বন্ধুবর এনামুল হাসান উপস্থিত ছিলেন।

হাটহাজারীর চলমান সংকটময় সময়ে এমন একটি মোবারক স্বপ্নের বহু তাৎপর্য রয়েছে। যেই আল্লামা বাবুনগরীর জন্য রাহমাতুল লিল-আলামিন,হযরত মুহাম্মদুর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কেঁদে কেঁদে দুআ করেছেন সেই আল্লামা বাবুনগরীর উপর যে/যারা জুলুম করেছে,করছে, মানসিক চাপে রাখছে এবং তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে তাদের ধ্বংস অনিবার্য!তাদের ধ্বংস অনিবার্য!! তাদের ধ্বংস অনিবার্য!!!

আল্লাহ তায়া’লা জালিমদের জুলুম ও ষড়যন্ত্র থেকে আল্লামা বাবুনগরী হাফিযাহুল্লাহুকে হেফাজত করুন এবং হযরতের ছায়াকে আমাদের উপর দীর্ঘায়িত করুন, আমিন।

লেখক: এইচ.এম. জুনাইদ
দাওরায়ে হাদীস মাস্টার্স ও উচ্চতর আরবী সাহিত্য বিভাগ, দারুল উলুম হাটহাজারী, চট্টগ্রাম।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ