জামিয়া ইসলামিয়া দারুল হাদীস রাজাগঞ্জ ইউনিয়ন এর সংক্ষিপ্ত পরিচিতি

প্রকাশিত: ১:২৩ অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০২০

জামিয়া ইসলামিয়া দারুল হাদীস রাজাগঞ্জ ইউনিয়ন এর সংক্ষিপ্ত পরিচিতি

মাসুম আহমদ,কানাইঘাট প্রতিনিধিঃ-
পটভূমি: সিলেট জেলাধীন কানাইঘাট উপজেলার সর্ব পশ্চিমে সুরমা নদীর তীরে অবস্থিত জনপদ রাজাগঞ্জ ইউনিয়ন। এজনপদের গাজীপুর গ্রামের এক গুনীজন মরহুম ক্বারী হাফিজ আব্দুল মন্নান (রহ.)।তিনি প্রয়োজন অনুভব করলেন অত্র অঞ্চলে একটি হাফিজিয়া মাদ্রাসা প্রতিষ্টার। সে সময় মরহুম হাফিজ সাহেব পারকুল মসজিদের ঈমাম ছিলেন।সেখানেই কিছু মেধাবী ছাত্রদের নিয়ে হিফজে কোরআন দরস দিতে শুরু করলেন।তাদের মধ্যে হাফিজা নুরুন নিসা ক্বারী হাফিজ রজব আলী ও মরহুম ক্বারী হাবিবুর রহমান প্রমূখ উল্লেখযোগ্য।
জামিয়ার প্রতিষ্টানিক রুপ: ১৩৩৭ বাংলা সনে তালাবাদের অধিক্য লক্ষ্য করে হাফিজ আব্দুল মন্নান রহ.নিয়মিত মাদ্রাসা প্রতিষ্টার সপ্ন দেখেন।এমাদ্রাসা প্রতিষ্টা চিন্তায় তিনি রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের মুরব্বিয়ান গুনিজনের সাথে বারবার যোগাযোগ করে মাদ্রাসা প্রতিষ্টা প্রয়োজনীতা বুঝানোর চেষ্টা করলেন।এলাকার দিন দরধী মানুষরা তার চিন্তাকে সমর্থন করে অত্র অঞ্চলের মধ্যবর্তী ও গুরুত্বপূর্ণ জায়গা হিসেবে পরিচিত রাজাগঞ্জ বাজার সংলগ্ন ১টি স্থান নির্ধারণ করে তালবাড়ীর দানশীল ব্যক্তিবর্গের ওয়াকফ ৪শতক জমির উপর বাশবেতের ভেড়া ও ছনের ছাউনি বিশিষ্ট একখানা গৃহ নির্মাণ করা হয়।
মরহুম হাফিজ আব্দুল মন্নান সাহেব নবনির্মিত গৃহ তার ছাত্রদের হিফজে কোরআনের দরস দিতে লাগলেন।সে সময় মাদ্রাসা প্রতিষ্টানিক নাম দেওয়া হয়”হাফিযিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা”।সে মাদ্রাসার প্রতিষ্টাতা মুহতামিম হিসেবে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে দায়িত্ব দেওয়া হয় হাফিজ আব্দুল মন্নান রহ.কে।সে সময়ে মাদ্রাসা সেক্রেটারী হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয় মরহুম মাষ্টার আব্দুল ওয়াহাব রহ. কে।যিনি গোলাপগঞ্জ চৌধুরী একাডেমীর প্রায় ৪০ বছর প্রধান শিক্ষক ছিলেন।আরো বড় পরিচয় হচ্ছে তিনি ছিলেন শায়খে কৌড়িয়া রহ. এর মুহতারাম শ্বশুর।
শায়খে কৌড়িয়া রহ. এর যোগদান: ১৯২৯ সনের দিকে রাজাগঞ্জ হাফিযিয়া মাদ্রাসার জলসায় আল্লামা শায়খে কৌড়িয়া রহ. এর পিতা আল্লামা আব্বাস আলী রহ. আসলে এলাকাবাসী তাকে একজন শিক্ষক দেয়ার অনুরোধ করেন।তিনি সে অনুরোধ রক্ষার্থে স্বীয় পুত্র শায়খে কৌড়িয়া যাকে দারুল উলূম দেওবন্দ থেকে ১৯২৯-৩১ বছর উলূমে দ্বীনের সর্ব্বোচ্চ শিক্ষা সমাপন করে এসে রাজাগঞ্জ মাদ্রাসায় যোগদান করেন হযরত শায়খে কৌড়িয়া রহ. মাদ্রাসাকে উন্নতি ও অগ্রগতির দিকে নিয়ে যেতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করেন। পাশাপাশি এলাকাতে প্রচলিত কুসংস্কার এবং অসামাজিক কার্যকলাপ রোধে ভূমিকা পালন করেন।
জামিয়ায় খওয়াজপুরী রহ. এর যোগদান এবং জামাত বিভাগের সুচনা: ১৩৫৯ বাংলা সনে শায়খে কৌড়িয়ার মুহতারাম পিতার ইন্তেকাল হলে স্বীয় পিতার ওসিয়াত রক্ষার্থে শায়খে কৌড়িয়া নিজের বাসস্থানে চলে যান।তার স্থলাভিষিক্ত হিসেবে হযরত আমজাদ আলী খুওয়াজপুরী রানাপিং মাদ্রাসায় শিক্ষক হিসেবে মনোনিত হয়েছিলেন।কিন্তু শায়খে কৌড়িয়ার অনুরোধে আল্লামা বায়মপুরী রহ. খুওয়াজপুরীকে রাজাগঞ্জ মাদ্রাসায় দায়িত্ব পালন করতে নির্দেশ দেন।তিনি ১৩৬০ বাংলা সনে পরিচালক পদে অধিষ্ঠিত হন।হযরত খুওয়াজপুরী (মইনা নিবাসী) স্বীয় পদে অধিষ্ঠিত ফাযিলে দেওবন্দ হাফিজ মাও.আব্দুল গনী রহ. হাফিজ আব্দুল মন্নান ও হাফিজ আব্দুল গফুরকে হিফজের শিক্ষক পদে নিয়োগ করেন।হযরত খুওয়াজপুরী রহ. এলাকায় দ্বীনি শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে হিফয বিভাগের সাথে ক্রমান্বয়ে মক্তব ছাফেলা বিভাগ ও আলিয়া বিভাগ চালু করেন। এতে আরো নতুন শিক্ষক হিসেবে মাও.আফতাব উদ্দীন ফতেহগঞ্জী ও হাফিজ শফিকুর রহমান গুঙ্গাউলী সহ প্রমূখকে নিয়োগ করেন।
দাওরায়ে হাদীসের সুচনা: ১৪০১ হিজরীতে ছাত্রদের অধিক্য এবং এলাকাবাসীর ইচ্ছায় দাওরায়ে হাদীস খোলার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হলে হযরত মুফতী রহমতুল্লাহ সহ শায়খুল হাদীস আল্লামা কুতুব উদ্দীন ও আল্লামা নজীর আহমদ (ঝিঙ্গাবাড়ি হুজুর)কে মনোনিত করা হয়।তাদের মাধ্যমে দাওরায়ে হাদীসের সুচনা করা হয়।
আল্লামা পারকুলীর আগমন: ১৯৮১ ঈসায়ী ১৪০১ হিজরীতে দাওরায়ে হাদীস খোলার পর কর্তৃপক্ষ ও এলাকাবাসীর অনুরোধে শায়খুল হাদীস আল্লামা জাওয়াদ হোসাইন পারকুলী রহ.কে মাদ্রাসার শায়খুল হাদীস হিসেবে ১৪০২ হিজরীতে অন্তর্ভূক্ত হন।এর আগে তিনি রানাপিং মাদ্রাসায় শায়খুল হাদীস ছিলেন।পর্যায়ক্রমে পারকুলী রহ.এহতেমামের দায়িত্ব পালন করেন।
হযরত পারকুলী রহ.এর শেষ জীবনে ১৯৯৬ইংরেজী সনে জামিয়ার ১৬ সালা দস্তারবন্দী মহা-সম্মেলন অনুষ্টিত হয়।
এতে ১৪৭ জন ফাযিলকে দস্তারে ফজিলত প্রদান করা হয়।
জামিয়ার সাবেক মুহতামিম হিসেবে যারা দায়িত্ব পালন করেন:
১/ প্রতিষ্টাতা মুহতামিম হা.ক্বারী আব্দুল মন্নান গাজীপুরী রহ. ২/ আল্লামা আব্দুল করীম শায়খে কোড়িয়া রহ. ৩/ মাওলানা আমজাদ আলী খুওয়াজপুরী রহ. ৪/ মাওলানা নজীর আহমদ ঝিঙ্গাবাড়ি দা.বা. ৫/মাওলানা আব্দুল আযীয বন্দরবাড়ী দা.বা. ৬/ শায়খুল হাদীস আল্লামা কুতুব উদ্দীন রহ.
জামিয়ার সাবেক শায়খুল হাদীস সাহেবান: ১/ মুফতী রহমতুল্লাহ রহ. ২/ মাওলানা ইসহাক আহমদ রহ. ৩/মাওলানা হাফিজ জাওয়াদ হুসাইন পারকুলী রহ. ৪/ মাওলানা নসীব আলী কানাইঘাটী রহ.৫/ মাওলানা নজীর আহমদ ঝিঙ্গাবাড়ি দা.বা. ৬/ মাওলানা রফিক আহমদ তুবাংগী দা.বা.।
জামিয়ার বর্তমান মুহতামিম: মাওলানা মমতাজ উদ্দীন দা.বা.
জামিয়ার বর্তমান শিক্ষা সচীব ও শায়খুল হাদীস: মাওলানা আহমদ আলী (মইনার হুজুর) দা.বা.।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ